আমফানের প্রভাব উত্তরে, ছাতা মাথায় কাটলো দিন

সহ সম্পাদক ঝিলাম দেব May 22, 2020 - Friday ডুয়ার্স 487


অতি দানব সাইক্লোন আমফানের তান্ডবে কার্যত ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে দক্ষিণবঙ্গ। কলকাতার ওপর দিয়ে এই ঝড় বয়ে যাওয়ার সময় মুখ্যমন্ত্রীর কার্যালয়কেও যেভাবে কাঁপিয়েছে তা চাক্ষুষ করেছেন বাংলার মানুষ টিভির পর্দায়। কলকাতায় এই আমফান ঢোকার পর পরিস্থিতি এতটাই ভয়ানক ছিল যে স্তম্ভিত হয়েগেছিলেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী। সাধারণ মানুষ, অসহায় চাষীদের কথা ভেবে চোখের জল চেপে রেখে সংবাদ মাধ্যমকে শুধু বলেছিলেন, ধ্বংস হয়ে গেল জেলা গুলো।

এরপর ধীরে ধীরে অনেকটাই শক্তিক্ষয় করে বাংলাদেশে ঢোকে ধ্বংসকারী আমফান। আমফানের প্রভাবে ২০মে রাতের থেকেই উত্তরের জেলাগুলোতে চলছে কখনো মাঝারি কখনো বা অতি মাত্রায় বৃষ্টিপাত। একদিকে লকডাউন, অন্যদিকে সারাদিন ভরা বৃষ্টিতে নাজেহাল মানুষ। বৃষ্টির সাথে সাথে সকাল থেকেই অন্ধকার হয়েছিল উত্তরের আকাশ। অতিরিক্ত বৃষ্টির কারণে ডুয়ার্সের বিভিন্ন জায়গায় জমে জল। ফুলে ফেঁপে উঠছে খাল, বিল, নদী, নালা। একদিনের বৃষ্টিতেই গ্রামের কাঁচা রাস্তা কাঁদায় চলাচলের অযোগ্য হয়ে উঠছে। বিভিন্ন জায়গায় বারবার বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে বিদ্যুৎ সংযোগ। তবুও অতি প্রয়োজনে বৃষ্টিতে ছাতা মাথায় করেই বের হতে হচ্ছে মানুষকে বাইরে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে বড় দোকান গুলি খুললেও একে লকডাউন ও বৃষ্টির কারণে তেমন লোকজন না থাকায় মন খারাপ ব্যবসায়ীদের। হটাৎ বৃষ্টির কারনে পায়ে হেটে বাড়ি ফেরা ভিন রাজ্যের শ্রমিকদের পরিস্থিতি হয়ে উঠছে আরও করুন। সব মিলিয়ে অনেকেই বলছেন লকডাউনের মাঝে আমফান যেনো মরার উপর খাড়ার ঘা।

আপনাদের মূল্যবান মতামত জানাতে কমেন্ট করুন ↴

সবার আগে খবর পেতে , পেইজে লাইক দিন

আপনার পছন্দ

বিজ্ঞাপন
PMJOK

আরও খবর

বিজ্ঞাপন
PMJOK